ইসলামী ব্যাংক ডিপোজিট মেশিন (IDM)

0
106

ইসলামী ব্যাংকে গ্রাহক‌দের অনে‌কেই এখন টাকা জমা দেয়ার জন্য IDM ব্যবহার কর‌ছেন। যারা এই সু‌বিধা ভোগ কর‌ছেন তারা অনেক এগি‌য়ে অন্য‌দের চাইতে। কারণ তারা ব্যাংকের কাউন্টার, বির‌ক্তিকর লাইন এবং সময়ের বাধ্যকাধকতা‌কে জয় কর‌েছেন।

IDM কি?
IDM হলাে ইসলামী ব্যাংক ডিপােজিট মেশিন। এটি নগদ টাকা, চেক, পে-অর্ডার, ডিভিডেন্ট ওয়ারেন্ট, গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানির বিল ইত্যাদি জমা দেয়ার অতি নিরাপদ ও নির্ভুল তথ্য সংরক্ষণকারী মেশিন। IDM টাকা গণনা করে না কিংবা টাকা ব্যাংক হিসাবে জমা করে না, তবে এটি নিরাপত্তার সঙ্গে টাকা ও তথ্য সংরক্ষণ করে। এ মেশিনে টাকা জমা দেয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ব্যাংকের কর্মকর্তা মেশিনটি খুলবেন এবং টাকার পরিমাণ নিশ্চিত হওয়ার পর একাউন্টে জমা করবেন।

এ মেশিনের মাধ্যমে রাত-দিন ২৪ ঘণ্টা ইসলামী ব্যাংকের যেকোন শাখায় টাকা জমা দিতে পারবেন। নগদ টাকা নিয়ে শাখায় যেতে হবে না বা লাইনে দাঁড়ানাের প্রয়ােজন নেই। নিজের সুবিধামত যেকোন সময়ে ২৪/৭/৩৬৫ যেকোন পরিমাণ টাকা জমা দিতে পারবেন।

IDM এর সুবিধা সমূহ
● IDM ব্যবসায়ীদের জন্য অত্যন্ত প্রয়ােজনীয় একটি সেবা। এর মাধ্যমে ব্যবসায়ীরা বিশেষভাবে উপকৃত হবেন। ক্যাশ ড্রয়ারে কিংবা বাসায় নগদ টাকা না রেখে দিনের শেষে ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে ঝুঁকি থেকে নিরাপদ ও নিশ্চিন্ত থাকবেন।
● মাসিক কিস্তি ভিত্তিক প্রকল্পে (MSS, Hajj, Mohor, RDS) টাকা মাসের যে কোন দিনে বা সময়ে IDM এ জমা দিতে পারবেন।
● ব্যাংকের শাখায় না গিয়েই নগদ টাকা, চেক, পে-অর্ডার, ডিভিডেন্ট ওয়ারেন্ট, গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানির বিল ইত্যাদি জমা দেয়া যায়।
● নিজের সুবিধামত রাত-দিন ২৪/৭/৩৬৫ যে কোন সময়ে জমা দেয়ার সুবিধা।
● ছুটির দিনেও জমা দেয়ার সুযােগ।
● ব্যাংকে গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে মূল্যবান সময় নষ্ট হবে না।
● যে কোন পরিমাণ টাকা জমা দেয়া যায়।
● ইসলামী ব্যাংকের যে কোন শাখার একাউন্টে টাকা জমা দেয়া যায়।

কিভাবে টাকা জমা দিবেন
টাকা জমার মেশিন (IDM) টাকা নগদ টাকা জমা দেয়ার সময় গ্রাহকদের করণীয়-
● খামের উপর সতের ডিজিটের একাউন্ট নম্বর, একাউন্টের নামসহ অন্যান্য তথ্য লিখতে হবে।
● একটি খামে সর্বোচ্চ ১০০ টি নােট দেয়া যাবে।
● টাকার পরিমাণ অধিক হলে একাধিক খাম ব্যবহার করতে হবে।
● প্রতি খামের উপর নােটের ডিনােমিনেশন অর্থাৎ কোন নােট কতটি এবং মােট টাকার পরিমাণ লিখতে হবে।
● জমাকারীর মােবাইল নং লিখতে হবে, যাতে জমা সংক্রান্ত যে কোন প্রয়ােজনে ব্যাংক কর্মকর্তা জমাকারীর সাথে কথা বলতে পারেন। টাকা ঢুকায়ে খামের মুখ আঠা বা স্টেপলার দিয়ে ভাল করে বন্ধ করতে হবে।
● IDM মেশিনে বাংলা ও ইংরেজি দুই ভাষায় নির্দেশনা দেয়া আছে, মেশিনের নির্দেশনা অনুসরণ করে সঠিকভাবে একাউন্ট নম্বর এবং শাখার নাম লিখতে হবে।
● এরপর মেশিন একটি ট্রানজেকশন নম্বর দিবে, সে নম্বরটি খামের উপর নির্দিষ্ট স্থানে লিখতে হবে।
● এরপর স্ক্রিনে লেনদেনের সংক্ষিপ্ত বিবরণী দেখানাে হবে, যেখানে জমাকৃত টাকার পরিমাণ, একাউন্ট নম্বর এবং ট্রানজেকশন নম্বর দেখানাে হবে। তথ্যগুলি পুনরায় মিলিয়ে নিয়ে সঠিক/OK বাটনে চাপ দিলে মেশিনের ডিপােজিট উইন্ডােটি ২০ সেকেন্ডের জন্য খুলবে। তখনই টাকা ভরা খামটি মেশিনের মধ্যে ফেলতে হবে।
● এরপর মেশিন থেকে একটি জমা স্লিপ বের হবে। যেটা আপনাকে সংরক্ষণ করতে হবে।
● একবার জমা দেয়ার পর বুঝতে পারবেন সময়, শ্রম ও অর্থ সাপেক্ষ কাজ কত সহজেই আপনি করতে পারছেন।

কিভাবে বিল ও চেক জমা দিবেন
IDM এ বিল ও চেক জমা দেয়ার ক্ষেত্রে উপরে বর্ণিত নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে-
● চেক যথাযথভাবে পূরণ করতে হবে।
● চেক বা বিল যেন অবশ্যই প্রদেয় শেষ দিনের ন্যুনতম এক কার্যদিবস পূর্বে মেশিনে জমা হয়।
● Clearing চেকের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে কালেকশন হওয়ার পরদিন একাউন্টে জমা হবে।

সতর্কতা
● কয়েন জমা দিবেন না।
● শাখার নাম, একাউন্ট নং এবং টাকার পরিমাণ সঠিকভাবে লিখবেন।
● জাল টাকা আছে কি না ভাল করে পরীক্ষা করবেন।
● ছেঁড়া-ফাটা নােট দিবেন না। খামে ১০০টির বেশি নােট দিবেন না।
● খামের মুখ ভাল করে আঠা লাগিয়ে দিবেন।
● নিজের মােবাইল নম্বর লিখবেন।
● ইউটিলিটি বিল জমা দেয়ার পূর্বে জেনে নিবেন উক্ত বিল ব্যাংকের মাধ্যমে জমা দেয়া যাবে কি-না।

জমা দিতে ভুল হলে কি করবেন
● জমাদান কালে কোন বাটন চাপতে ভুল হলে তা মােছার সুযােগ রয়েছে অথবা ট্রানজেকশনটি বাতিল করে প্রথম থেকে জমাদান প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু করতে পারবেন।
● এর জন্য গ্রাহকের কোন প্রকার হয়রানি বা জরিমানা নেই।

বিস্তারিত জানতে
● ব্যাংকের যেকোন শাখায় যোগাযোগ করুন।
● অথবা ✆ কল সেন্টারঃ ১৬২৫৯ অথবা ৮৩৩১০৯০ (দেশ)/০০৮৮-০২-৮৩৩১০৯০ (বিদেশ) নম্বরে এ কল করুন।

(লেখাটি পূর্বে ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ প্রকাশিত)

রিপ্লাই দিন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করে এখানে আপনার নাম লিখুন